স্মার্টফোনে ওয়েব ডিজাইন

Webdesign in smartphone

অনেকের স্মার্টফোন আছে কিন্তু কম্পিউটার নেই। তাই অভিযোগ, কম্পিউটার নেই তাই ওয়েব ডিজাইন করতে পারছি না। আসলে কোনো কিছু খুব সহজে পাওয়া যায় না। অনেকের কম্পিউটার আছে কিন্তু সে শুধু গান শুনে বা মুভি দেখে সময় কাটায়। কিন্তু তুমি যদি চাও মোবাইলেই ওয়েব ডিজাইন প্র্যাক্টিস করতে পারো। চলো শুরু করা যাক।

প্রথমে এই এপটি ডাউনলোড করে নাও : anWriter free HTML editor

এপটির সাইজ মাত্র ২ মেগাবাইট।

স্মার্টফোনে ওয়েব ডিজাইন

এখন এপটি চালু করো নিচের কোডটি লিখে ফেলো,

<!DOCTYPE html>
<html>
	<head>
		<title>Page Title</title>
	</head>
	<body>
		<h1>My First Heading</h1>
		<p>My first paragraph.</p>
	</body>
</html>

লেখার পর আশা করি তোমার মোবাইলের স্ক্রিন ও নিচের ছবির মতো হবে।

কোড লিখার পর

এখন প্লে বাটনে চাপ দাও। ম্যাজিক!!!

এইরকম প্রিভিউ আসবে

তুমি পেরেছো প্রথম HTML কোড লিখতে। এখন চলো দেখি এই কোড এর কোন পার্ট কি কাজ করে।

<!DOCTYPE html > এই পার্টটি দিয়ে ব্রাউজারকে বোঝানো হয়েছে যে এটি একটি html ফাইল। এই লেখাটি দেখলেই ব্রাউজার বুঝে নেয় যে এটি HTML5 ভার্সন।

ট্যাগ: ট্যাগ হলো html এ ব্যবহৃত কিছু শব্দ যা ব্রাউজার বুঝতে পারে ও তা অনুযায়ী করতে পারে।

<> এটি ব্যবহৃত হয় কোনো ট্যাগ এর শুরু বোঝাতে। এবং </> এটি ব্যবহৃত হয় কোনো ট্যাগ এর শেষ বোঝাতে। যেসব ট্যাগ এর শুরু ও শেষ আছে তাদেরকে ডাবল ট্যাগ বলে। যেমন : <html></html>,<body></body> এইগুলো ডাবল ট্যাগ।

আর যেসব ট্যাগ এর শেষ নেই তারা সিঙ্গেল ট্যাগ। যেমন: <img/> তবে সিঙ্গেল ট্যাগ এর স্ল্যাশ টা শেষে থাকে।

একটি html ফাইলের সব কোড html ট্যাগ এর মধ্যে থাকবে।

html ট্যাগ এর ভেতরে থাকবে দুই মূল ট্যাগ head এবং body . হেড ট্যাগ এর ভেতরে থাকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য যা মূলত ব্যবহারকারীর সরাসরি কাজে আসে না। এবং বডি এর ভেতরের তথ্য সরাসরি ব্রাউজার এ দেখা যায়।

h1, h2, h3, h4, h5, h6 এগুলো হলো হেডার ট্যাগ। body এর মধ্যে কোনো লেখা কে আকারে বড় করতে এটি ব্যবহৃত হয়। এটি SEO অপটিমাইজেশনে ও কাজ করে।

p হলো প্যারাগ্রাফ ট্যাগ। এর মাঝে কোনো প্যারাগ্রাফ লিখতে হয় বা অনেক লেখা থাকলে এইখানে লিখতে হয়। আমরা আস্তে আস্তে আরো ট্যাগ সম্পর্কে জানবো।

পরের পোস্টে আরো জানবো ট্যাগ সম্পর্কে। আজকে এই পর্যন্তই। ধন্যবাদ।

দেখো স্মার্টফোনে প্রোগ্রামিং কিভাবে করবো?